Breaking News

১ দিনের শিশুকন্যাকে ফেলে গেল বাবা-মা, কান্না শুনে আগলে রাখল রাস্তার কুকুর

এক নেটিজেন বাচ্চাটির ছবি-সহ গোটা ঘটনাটি সোশ্যাল সাইটে পোস্ট করেছেন। তিনি লিখছেন, “সন্ধে ৭:৩০ নাগাদ মাসির ফোন আসে, একটা রত্ন পেয়েছি, পরে তোকে সব জানাচ্ছি, এখন ব্যবস্থা করি।”

এরপর তিনি লিখছেন “রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ মাসিকে ফোন করি, ঘটনা জানতে। মাসি এবং দিদির এক বান্ধবী বাজারে যাচ্ছিলেন, হঠাৎ গলির মোড়ে একটা কান্নার আওয়াজ পান। এগিয়ে যেতেই চোখে পরে এই ফুলের মত বাচ্চাটিকে। কয়েকটা কুকুর মিলে আগলে রেখেছিল”

জানা গিয়েছে, বাচ্চাটিকে উদ্ধার করার পর সাগর দত্ত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এখন সেখানেই চিকিৎসাধীন ওই সদ্যজাত। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন মাত্র ১ দিন বয়স ওই শিশুর। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা তথ্য অনুযায়ী আজ বাচ্চাটিকে বারাসাতের একটি হোমে পাঠানো হবে।

জানা গিয়েছে, বাচ্চাটিকে উদ্ধার করার পর সাগর দত্ত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এখন সেখানেই চিকিৎসাধীন ওই সদ্যজাত। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন মাত্র ১ দিন বয়স ওই শিশুর।

সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা তথ্য অনুযায়ী আজ বাচ্চাটিকে বারাসাতের একটি হোমে পাঠানো হবে।
তিনি আরও জানিয়েছেন, “যদি কোনও সহৃদয় মানুষ এই শিশুটির দায়িত্ব নিতে চান, সেক্ষেত্রে হোম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে বাচ্চাটিকে নিতে পারেন।

খালি পেটে যে কাজ ভুলেও করবেন না।

জানেন কি ক্ষুধা পেটে বা খালি পেটে কিছু কাজ করা একদম ঠিক নয়? না হলে শরীরে বিভিন্ন সমস্যা হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। যেমন ধরুন, সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে চা-কফি পান করা একদম ঠিক নয়। খালি পেটে এগুলো পান করলে এসিডিটির সমস্যা হতে পারে। এ ছাড়া আরো কিছু কাজ রয়েছে যেগুলো খালি পেটে করা ভালো নয়।

১. চুইংগাম চিবানোঃ চুইংগাম চিবালে ডাইজেস্টিভ এসিড তৈরি হয়। খালি পেটে চুইংগাম চিবানো পাকস্থলীর দেয়ালে সমস্যা করে। এতে গ্যাসট্রিকের সমস্যা হতে পারে।

২. প্রদাহরোধী ওষুধ গ্রহণঃ খালি পেটে কখনো প্রদাহরোধী ওষুধ খাবেন না। এতে গ্যাস হতে পারে। এ ছাড়া এতে ওষুধের কার্যকারিতাও অনেক কমে যায়।

৩. রাতে না খেয়ে ঘুমানোঃ ক্ষুধা লাগলে এবং শরীরের গ্লুকোজের মাত্রা কম থাকলে ঘুমের অসুবিধা হয়। কম ঘুম আবার ক্ষুধা তৈরির হরমোনকে বাড়িয়ে দেয়। তাই রাতে একটু কিছু খেয়ে ঘুমান।

তবে খালি পেটে কিসমিস ভেজানো পানি খাওয়ার উপকারিতাঃ পায়েস কিংবা পোলাও- কয়েকটি কিসমিস তাতে দিলে, স্বাদ কয়েক গুণ বেড়ে যায়। কিন্তু শুধু কিসমিসের কত গুণ, তা অনেকেরই অজানা। রোজ এক কাপ করে কিসমিস ভেজানো পানি খেলে পাওয়া যায় বিশেষ উপকারিতা। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে এমনই জানা গিয়েছে।

জেনে নিন কী কী ফল পাবেন কিসমিস ভেজানো পানি খেলে, কিসমিসে থাকে পটাশিয়াম, যা হার্টকে ভাল রাখে এবংখারাপকোলেস্টরল দূর করতে সাহায্য করে। এতে রয়েছে আয়রন। যা রক্তাল্পতা কমাতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। কিসমিসে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে যা শক্তি জোগায়। মহিলারাই বিশেষত রক্তাল্পতায় ভোগেন, তাই চিকিৎসকরা বলেন কিসমিস খাওয়া মহিলাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে বিশেষ উপকারী।

এছাড়াও নিয়মিত কিসমিস খেলে বা কিসমিস ভেজানো জল খেলে লিভারও ভাল থাকে। যাঁরা প্রায়শই পেটের গন্ডগোলে ভোগেন তাঁদের জন্য এই পানি বিশেষ উপকারী। কিসমিস ভেজানো পানি খেলে শরীরে জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া শুরু হয়। যার ফলে রক্ত পরিশোধিত হয়।

২ কাপ জলে ১৫০ গ্রাম কিসমিস ভিজিয়ে রাখতে হবে সারা রাত। গাঢ় রংয়ের কিসমিস বেশি উপকারী। কিসমিসগুলি ভালভাবে ধুয়ে, সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন।

পরেরদিন সকালে কিসমিস ছেঁকে নিয়ে সেই জল হালকা গরম করে খালি পেটে খেয়ে নিন। এর পরে আধ ঘণ্টা আর অন্য কিছু খাবেন না। সপ্তাহে অন্তত তিনদিন এই জল খেলে সুস্থ থাকবেন।

কিসমিস ভেজানো পানি খেলে লিভারের পাশাপাশি কিডনিও খুব ভাল থাকে। আর কিডনি ও লিভার দুটো ভাল থাকলে হজমও ভালভাবে হয়।কীভাবে বানাবেন কিসমিস ভেজানো পানি ?

Sharing is caring!

About admin

Check Also

পোস্ট অফিসের এই দুর্দান্ত স্কিমে এখন অল্প সময়ে বিনিয়োগ করে মিলবে 3.5 লক্ষ টাকা লাভের সুযোগ

করোনার আবহে যখন সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা একেবারে থমকে গিয়েছে তখন পোস্ট অফিস তাদের গ্রাহকদের জন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *