Breaking News

ক্রিকেট খেলার সময় মাথায় বল না লাগলে আজ ৮৭ হাজার কোটি টাকার মালিক হতেন না উদয়

ভারত(India) 1983 সালের বিশ্বকাপ(Cricket World Cup) জিতেছিল এবং তারপর দেশে ক্রিকেটের উত্তেজনা বইতে শুরু করে। ক্রিকেট খেলাটি ভারতে এতটাই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে যে, মানুষ তাদের ক্ষুধা-তৃষ্ণা ভুলে ক্রিকেট খেলতে দেখা যায়। আজ ভারতীয়রা ক্রিকেটের প্রতি এতটাই আসক্ত যে ভারতে ক্রিকেটকে শুধু একটি খেলা নয় বরং একটি ধর্ম একটা অনুভূতি হিসাবে বিবেচনা করা হয়। সবাই বড় হয়ে ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখে।

এই স্বপ্ন নিয়েই ক্রিকেট মাঠে নামেন উদয় কোটক(Uday Kotak) নামের এক যুবক। কিন্তু খেলার সময় মাথায় বল লেগে গেলে তিনি ক্রিকেটের প্রতি আবেগ ছেড়ে দেন। তারপর তিনি একটি ব্যবসায় মনস্থির করেন এবং আজ তিনি 87,000 কোটি টাকার মালিক। চলুন তাহলে তার এই অভিনব যাত্রা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। উদয় কোটকের(Uday Kotak) জন্ম মুম্বাইয়ের এক মধ্যবিত্ত পরিবারে।

তাদের একসাথে 60 জনের একটি পরিবার ছিল। এমন এক সময়ে যখন শচীন টেন্ডুলকারও(Sachin Tendulkar) তেমনভাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন নি, তখন উদয় কোটক রমাকান্ত আচরেকারের কাছ থেকে ক্রিকেটের পাঠ নিয়েছিলেন। ঘটনাটি 1979 সালের। তখন কঙ্গা লিগে ক্রিকেট খেলছিলেন উদয় কোটক। প্রতিকূল বর্ষা মৌসুমে এই লিগের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হয়। উদয় কোটক খেলছিলেন নন স্ট্রাইকার এন্ডে।

স্ট্রাইকে থাকা খেলোয়াড়টি একটি শট মেরে রানের জন্য দৌড়ে যান। ফিল্ডার বলটি আটকান এবং স্ট্রাইকারের প্রান্তে ছুড়ে দেন। কিন্তু বল লাগে উদয় কোটকের মাথায় এবং গুরুতর জখম হন। তখন মৃত্যুর দরজায় ছিলেন উদয় কোটক। কিন্তু অস্ত্রোপচার করা হয় এবং উদয় কোটক নিরাপদে সুস্থ হয়ে ওঠেন। এরপর ক্রিকেট থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন উদয় কোটাক। সেই আঘাত পাওয়ার পর দীর্ঘদিন বিশ্রাম নিতে হয়েছে উদয় কোটককে।

পরে তিনি মুম্বাইতে এমবিএ(MBA) সম্পন্ন করেন। পড়ালেখার পর তিনি কিছুদিন পারিবারিক তুলার ব্যবসা করেন। কিন্তু তার ভালো লাগেনি, তাই চাকরি পাওয়ার চেষ্টা করেন। তিনি হিন্দুস্তান ইউনিলিভারে একটি ভাল চাকরি পেতে চলেছিলেন, কিন্তু তিনি তার মন পরিবর্তন করেন এবং একটি ব্যবসা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেন। প্রাথমিকভাবে 1985 সালে, তিনি বন্ধুদের কাছ থেকে ধার করে 30 লক্ষ টাকা সংগ্রহ করেন এবং নিজের বিনিয়োগ কোম্পানি শুরু করেন।

তিনি শীঘ্রই মাহিন্দ্রা গ্রুপের(Mahindra Group) সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন। এরপর তার বিনিয়োগ এ কোম্পানির প্রসার ঘটে। তার কোম্পানি ব্যাংকিং, বীমা, মিউচুয়াল ফান্ড এবং ঋণ প্রদান করে। তিনি 2003 সালে আরবিআই(RBI) এর লাইসেন্স পান এবং কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাংক(Kotak Mahindra Bank)প্রতিষ্ঠা করেন। এই ব্যাংক খুব ভালো ভালো কোম্পানিকে ঋণ দিয়েছিল।

তার স্মার্ট ব্যবসায়িক নীতির কারণে আজ উদয় কোটক এর কোটক মাহিন্দ্রা ব্যাঙ্ক(Kotak Mahindra Bank) ভারতের সেরা দশটি ব্যাঙ্কের মধ্যে একটি। আজ উদয় কোটকের 87,000 কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে। ক্রিকেট মাঠে খেলতে গিয়ে মাথায় বল না পড়লে উদয় কোটক হয়তো ক্রিকেটার হয়ে যেতেন, কিন্তু জীবনের ওই একটি মোড় তাকে সম্পূর্ণ অন্য পথে নিয়ে যায় এবং বর্তমানে তিনি সাফল্যের শীর্ষে বসে আছেন।

Sharing is caring!

About admin

Check Also

শুধু বিবাহিত যারা তাদের জন্য এ পোস্ট দয়া করে অবিবাহিতরা পড়বেন না

বিবা’হিত জীবনে যৌ’ নতা নিয়ে কিসের এত লজ্জ্বা? যখন বিধাতা স’ঙ্গ’মকে স্বর্গীয় বন্ধ’ন বলে ঘোষনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *